রিয়েলটাইম ড্যাশবোর্ড

সক্রিয় ডিএমএস এর রিয়েলটাইম ড্যাশবোর্ড: ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম ম্যানেজমেন্ট এর জন্য একটি আদর্শ ড্যাশবোর্ড

ড্যাশবোর্ড হচ্ছে একটি ইন্টারফেস যা বাস্তব সময়ে কোন সফটওয়্যার , অ্যাপ বা  ওয়েবসাইটের মূল তথ্য গুলোকে আপনার সামনে তুলে ধরে । এই ড্যাশবোর্ড এর মাধ্যমে একজন ব্যবহারকারী তার ব্যবহৃত আপ্লিকেশনটির  তথ্যগুলিকে কাঙ্ক্ষিত রূপে সুন্দর ও গুছানোভাবে দেখতে পারে যা ড্যাশবোর্ডের একটি অনন্য  বৈশিষ্ট্য।  সেখানে  প্রদত্ত ফাংশানগুলোর মাধ্যমে  ব্যবহারকারীরা দেখতে পায় যে, কিভাবে বিভিন্ন নির্ধারিত কার্যক্রম সময়ের পরিবর্তনের সাথে এগিয়ে চলছে এবং সেখান থেকে সে তার লক্ষ্য মাত্রার উপর নির্ভর করে শক্তিশালী বিশ্লেষণ ,পরিকল্পনা এবং কার্য সম্পাদন করে থাকে ।

সক্রিয় ডিস্ট্রিবিউশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (ডিএমএস) সফটওয়্যারে রয়েছে একটি আধুনিক সকল রিয়েলটাইম ড্যাশবোর্ড। এটা বিক্রয় ও ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেলের মধ্যে সমন্বয় সাধন করতে আপনাকে সহায়তা করে এবং প্রতিদিন কি পরিমান বেচা-কেনা হচ্ছে তার হিসাবসহ আপনার সেলস চ্যানেলের আরো অনেক তথ্য  রিয়েলটাইমে  প্রদর্শন করে আপনার ব্যবসাকে আরো গতিশীল করে তোলে।

আপনার ব্যবসায়ের জন্য কেন রিয়েলটাইম ড্যাশবোর্ড প্রয়োজনীয়:

ব্যবসায়ের মালিক বা সেলস ম্যানেজার হিসেবে আপনি  কোনো অপ্রয়োজনীয় তথ্য দেখতে চান না যা আপনার গুরুত্বপূর্ণ সময় নষ্ট করে এবং আপনার কাজকে বিরক্তিকর করে তোলে।  একটি ভালো ড্যাশবোর্ড সেলস চ্যানেলের গুরুত্বপূর্ণ অনেক তথ্য আপনার চোখের সামনে রিয়েল টাইমে (যা দেখে আপনি বর্তমানে কি হচ্ছে তা বুঝতে পারবেন) তুলে ধরে আপনার প্রতিদিনের কাজকে সহজ করে দেয় । একটি ভালো ড্যাশবোর্ড সেলস চ্যানেলের মূল মেট্রিকগুলিকে এক জায়গায় এনে প্রতিদিনের সেলস আপডেট  আপনার সামনে তুলে ধরবে নিমিষেই। 

আপনার ব্যবসায়ের সেলস রেভিনিউ এর বিভিন্ন বিশ্লেষণ পাখির চোখে দেখানোর পাশাপাশি সেলস ড্যাশবোর্ড মাঠ পর্যায়ে কাজ করা বিক্রয় কর্মীদের টার্গেট ও অ্যাচিভমেন্ট দেখায়  এবং প্রতিদিনের মার্কেট ভিজিটের তথ্য  আপনার সামনে তুলে নিয়ে আসে। এই রিয়েল টাইম ড্যাশবোর্ড ব্যবহার করে সেলস টিমের গুরুত্বপূর্ণ সংখ্যাগুলো দ্রুত দেখে নেওয়া যায়, ফলে আপনার জন্যে সেলস চ্যানেলের বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নিতে সুবিধা হয় ।

এই ধরণের ড্যাশবোর্ড এমনভাবে সাজানো যাতে করে আপনি আপনার ডিস্ট্রিবিউশন সেলস চ্যানেলের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ অপারেশনের তথ্য এক জায়গা থেকেই পেয়ে যেতে পারেন এবং সেই অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। একটি ভালো সেলস চ্যানেল ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার ব্যবহার করলে এবং একটি উন্নত ড্যাশবোর্ড নিয়ে কাজ করার সুযোগ পেলে আপনি আপনার ব্যবসার  প্রক্রিয়াগুলোকে আরো অনেক সহজে এবং ঝামেলামুক্ত ভাবে সম্পন্ন করতে পারবেন।

সক্রিয়  ড্যাশবোর্ড কীভাবে আপনার ব্যবসাকে আপ- টু-ডেট রাখে?

সক্রিয়  ড্যাশবোর্ড কীভাবে আপনার ব্যবসাকে আপ টু ডেট রাখে

আপনার ব্যবসার জন্য সক্রিয় ডিএমএসের একটি আধুনিক রিয়েল টাইম ড্যাশবোর্ড রয়েছে যা ব্যবসার সাফল্য পরিমাপে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি ব্যবহারে সেলস টিমের টার্গেট অর্জিত হচ্ছে কিনা তার তথ্য নির্ভুলভাবে এবং রিয়েল টাইমে আপনার সামনে ফুটে উঠবে। সক্রিয় ডিএমএস সফটওয়্যার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যথাযথভাবে সংরক্ষন করে এবং তাদেরকে চার্ট বা গ্রাফ আকারে আকর্ষণীয়ভাবে উপস্থাপন করে। এর ব্যবহারকারীদের জন্য রয়েছে যে কোনও সময় বিশ্বব্যাপী অ্যাক্সেসের সুবিধা। সক্রিয় ডিএমএস ব্যবহারে আপনি নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর পেয়ে যাবেন খুব সহজেঃ 

  • আপনার বিক্রয়কর্মী  কি সঠিকভাবে মার্কেট ভিজিট  করছেন?
  • আজকের মোট অর্ডারের পরিমাণ কত?
  • অর্ডার দেওয়ার পরে পণ্যটি সরবরাহ করতে কত সময় নিচ্ছে?
  • কোন দোকান কতটুকু অর্ডার করলো 
  • কোন দোকানে কত টাকা পাওনা এবং সেখান থেকে কালেকশন কতো হলো
  • আপনার টপ পারফর্মিং এলাকা, বিক্রয়কর্মী, পণ্য ইত্যাদি সহ আরো বিভিন্ন ধরণের তথ্য বিশ্লেষণ

সেলস চ্যানেলের এই ছোট ছোট তথ্যগুলো জানা একাধারে খুব গুরুত্বপুর্ণ; অন্যদিকে এগুলো কাগজে-কলমে জোগাড় করাও খুবই ঝামেলাপূর্ণ। অনেক প্রতিষ্ঠানই এই সকল কাজের জন্য কর্মীদের দেয়া ম্যানুয়াল রিপোর্টিং এর উপর নির্ভর করে এবং এই তথ্যগুলোকে এক্সেল স্প্রেডশিট বা  অন্য কাগজ-পত্রের মাধ্যমে ম্যানেজমেন্টকে রিপোটিং করে থাকে। এই পদ্ধতিগুলো যেমন তথ্যের নির্ভুলতা নিশ্চিত করে না তেমনি এই মাধ্যমে প্রতিদিনের তথ্য হালনাগাদ করাও প্রায় অসম্ভব। তাহলে চিন্তা করুন, আপনার হাতে আছে এমন এক স্বয়ংক্রিয় সফটওয়্যার যাতে আছে একটি অত্যাধুনিক ড্যাশবোর্ড  যা থেকে প্রয়োজনীয় সমস্ত মেট্রিকগুলি আপনি পেয়ে যাচ্ছেন অত্যন্ত সহজ ও নির্ভুলভাবে।

সক্রিয়  ডিএমএস ড্যাশবোর্ডের বৈশিষ্ট্যগুলি:

সক্রিয়  ডিএমএস ড্যাশবোর্ডের বৈশিষ্ট্যগুলি

সক্রিয়  ডিএমএস ২ টি প্ল্যাটফর্মে বিভক্ত। একটি হলো ওয়েব ভিত্তিক এবং অন্যটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ভিত্তিক। ওয়েব ভিত্তিক প্লাটফর্মটি ব্যবসা মালিক বা  ম্যানেজমেন্ট টীম সদস্যদের জন্য এবং মোবাইল অ্যাপেটি হচ্ছে মাঠ পর্যায়ের বিক্রয়কর্মীদের জন্য। মোবাইল অ্যাপে যখনই কোনও ডেটা ইনপুট হয় সাথে সাথে এটি রিয়েল টাইমে ওয়েব প্ল্যাটফর্মে আপডেট হয়।

সক্রিয় ডিএমএস ড্যাশবোর্ডটি কয়েকটি বিভাগে বিভক্ত,যেমন :

১. তাৎক্ষণিক তথ্য উপস্থাপন: 

এই অংশটি সেলস টিমের দৈনিক কার্যক্রম গুলোকে উপস্থাপন করে। পুরো সেলস টিমের জন্য ড্যাশবোর্ডের এই অংশে রয়েছে একাধিক রিয়েল টাইম মেট্রিক । 

এখানকার মেট্রিক্সগুলোকে বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত করে যেখানে দৈনিক লক্ষ্যমাত্রা বনাম অর্জনকে গ্রাফের মাধ্যমে  প্রদর্শন করা হয়েছে। অধিকতর বিশ্লেষণের জন্য আরও অনেক প্রাসঙ্গিক তথ্য যেমন কতগুলো আউটলেট ভিজিটের বিপরীতে কতগুলো ইনভয়েস কাটা হয়েছে , মোট কত টাকার অর্ডার এসেছে ইত্যাদি সহ আরও বেশ কিছু মেট্রিক্স ড্যাশবোর্ডের এই অংশে সংযোজন করা হয়েছে যাতে একজন সেলস ম্যানেজার তাঁর টিমের কার্যকারিতা সঠিক ভাবে মূল্যায়ন করতে পারেন। সেলস টিমের দৈনিক কার্যক্রমকে সামগ্রিকভাবে এক নজরে দেখার জন্য এটি একটি খুবই শক্তিশালী ফিচার।

২. ক্যাটাগরি অনুযায়ী তথ্য প্রদর্শন :

এই অংশটি সুসজ্জিতভাবে  ফিল্টারিং এর মাধ্যমে ডাটা গুলোকে আলাদা করে। এখানে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিক্তিতে ডাটা প্রদর্শনের  অপশন আছে যাতে আপনি প্রয়োজনীয় ক্যাটাগরিটি সিলেক্ট করে ফিল্টারিং এর মাধ্যমে তথ্য বের করে নিয়ে আসতে  পারেন। যার ফলে আপনি  প্রয়োজন অনুযায়ী নির্দিষ্ট এলাকায় কত টাকার, কোন ধরণের পণ্য বিক্রয় করলেন তা বুঝতে পারবেন। আবার একইভাবে কোন বিক্রয়কর্মী কত টাকার, কোন ধরণের পণ্য বিক্রয় করলো সেই বিশ্লেষিত তথ্যও পেয়ে যাবেন স্বয়ংক্রিয়ভাবে ও নিমিষেই। চিন্তা করুন, খাতা কলমে কাজ করে এই তথ্য বের করতে লেগে যেত ঘন্টার পর ঘন্টা! এই ফিল্টারগুলি আপনার সুবিধা অনুযায়ী সেলস ডেটা বিশ্লেষণ এবং দ্রুত পরিদর্শন করতে সহায়তা করে।

৩.সময়ের সাথে ব্যবসায়ের বৃদ্ধি:

ব্যবসায়ের বৃদ্ধি হল প্রতিটি ব্যবসায়ের কৌশলগত সূচক যা কোম্পানির সাফল্য নির্ধারণে ব্যবহৃত হয়, তাই এটিকে নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

একটি নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে আপনার সেলস টিম লক্ষ্যমাত্রার কতটুকু অর্জন করতে পেরেছে বা ব্যবসা কতটুকু বৃদ্ধি পেয়েছে তা জানার জন্য বা মূল্যায়নের জন্য এই ফিচারটি খুবই গুরুত্বপূর্ন। এটি একটি সময়সীমার মধ্যে কতটুকু বিক্রয় বৃদ্ধি পেয়েছে তা প্রদর্শন করে। তদুপরি, সময়ের সাথে আলাদা ক্যাটাগরি অনুসারেও সেলসের  বৃদ্ধি দেখার অপশন রয়েছে। কোন পণ্যগুলির সর্বাধিক বিক্রয় হচ্ছে  এবং কোনটির বিক্রি কম হচ্ছে  তাও দেখা যায় এই ফিচারটির মাধ্যমে। 

এই ড্যাশবোর্ডটি কিভাবে আপনার ব্যবসাকে উপকৃত করে:

সেলস টিম মূল্যায়নের জন্য নির্দিষ্ট সূচক:

এটি আপনার ব্যবসা এবং সেলস টিমের কার্যক্রম পরিমাপ করার জন্য বিভিন্ন সূচক প্রদান করে । ব্যবসায়ের অর্থনৈতিক সূচক হিসাবে রয়েছে দৈনিক পেমেন্টের রিপোর্ট, সেলস টিমের কার্যকারীতার মূল্যায়নের সূচক হিসাবে রয়েছে দৈনিক মার্কেট ভিজিটের রিপোর্ট এবং ব্যবসার বৃদ্ধি দেখার জন্য রয়েছে আরো অন্যান্য রিপোটিং এর ব্যবস্থা । 

সর্বাধিক প্রাসঙ্গিক তথ্য প্রদর্শন করে  :

ড্যাশবোর্ড আপনাকে আকর্ষণীয় উপায়ে সেলস এর সাথে সম্পর্কিত সর্বাপেক্ষা প্রাসঙ্গিক তথ্যগুলোকে সুসজ্জিত ভাবে প্রদর্শন করে; যার ফলে আপনার মাঠ পর্যায়ের বিক্রয় কার্যক্রমে কোন অসংগতি থাকলে তা সহজেই ধরা পড়ে। আরো উল্লেখ্য যে, শুধুমাত্র প্রাসঙ্গিক তথ্য বিশ্লেষণ করে ব্যবসায়ে আরো গতি আনতে এবং ব্যবসাকে আরো লাভজনক করতে ড্যাশবোর্ডে  অনেক তথ্য একত্রে এনে হযবরল না করে বরং শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় সূচকগুলোই রাখা হয়েছে । 

ব্যবসায়ের প্রক্রিয়াকে উন্নত করে :

এই ড্যাশবোর্ডটি ব্যবহার করে ব্যবসাকে উন্নতির একটি চলমান প্রক্রিয়ায় অন্তর্ভুক্ত করা যায় । ফলে, ব্যবসা বা কোম্পানির  মধ্যে সফল উদ্যোগগুলি আরও স্পষ্টভাবে দেখা যায়, এবং অবাঞ্ছিত ব্যাপারগুলোকে (যেমন না চলা পণ্য, খারাপ পারফর্ম করতে থাকা এলাকা, বা বিক্রয়কর্মী, অথবা কোন একটি বিশেষ প্রক্রিয়া যার কারণে ব্যবসায়ের উন্নতি আশানুরুপ হচ্ছে না) আরও দ্রুত সমাধান  করা যায়।

প্রয়োজন অনুসারে কাস্টমাইজযোগ্য ফিচার অপশন :

এই ড্যাশবোর্ডটি ব্যবহারকারীর প্রয়োজনীয়তার ভিত্তিতে আলাদা ইন্ডাস্ট্রির জন্য চাহিদামতো  কাস্টমাইজ করা যায়। ফলস্বরূপ, ব্যবহারকারীরা তাদের ব্যবসা এবং বিক্রয় ব্যবস্থার উপর আরও নিয়ন্ত্রণ অর্জন করে এবং নিজের ব্যবসার জন্য নির্বাচিত মেট্রিক গুলো দেখতে সক্ষম হন । 

সকল ডেটা একটি কেন্দ্রীয় অবস্থানে প্রদর্শন করে :

ড্যাশবোর্ডটি আপনাকে বিভিন্ন উৎস  থেকে  সংগ্রহকৃত ডেটা একটি কেন্দ্রীয় জায়গায় দেখিয়ে থাকে। ফলস্বরূপ একজন ব্যবহারকারী পরস্পর সম্পর্কযুক্ত ও প্রাসঙ্গিক বিভিন্ন প্রক্রিয়া থেকে প্রাপ্ত তথ্য একটি কেন্দ্রীয়  জায়গা থেকে পর্যবেক্ষন করতে সক্ষম হন । সেখান থেকে কোনো একটি  প্রক্রিয়ায় যদি কোনো ভুল-ত্রূটি থাকে যা কিনা বাকি ব্যবসাকে প্রভাবিক করছে তবে তাও বিশ্লেষণ করে খুব সহজেই খুঁজে বের করার সুযোগ থাকে। 

শেষ কথা 

সক্রিয়  ডিএমএস এ থাকা ডাইনামিক ড্যাশবোর্ডের মাধ্যমে আপনার সেলস ও ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেলের তথ্যগুলো রিয়েল টাইমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপডেট হয়; ফলস্বরূপ  সমস্ত সেলস টিমের কার্যক্রম এর মাধ্যমে মনিটরিং করা যায় । সক্রিয়  ডিএমএস এর ড্যাশবোর্ড ব্যবহার  করার অর্থ হচ্ছে আপনি আপনার ব্যবসায়ের বিভিন্ন অতি গুরুত্বপূর্ণ মেট্রিক্স এবং সেলস টিমের সকল তথ্য একটি কেন্দ্রীয়  জায়গায় দেখতে পাচ্ছেন । 

আপনার ব্যবসায়ের উন্নতি করতে চাইলে একবিংশ শতাব্দীর যুগোপযোগী প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে। যুগোপযোগী প্রযুক্তি ব্যবহার করার প্রতি অলসতা দেখালে আপনার সেলস চ্যানেল সামলানোর ব্যাপারটা হয়ে উঠতে পারে আপনার গলার কাঁটা ও ব্যবসায়ে ক্ষতির কারণ। তাই, আপনার হাতে থাকা বিভিন্ন প্রযুক্তিগত হাতিয়ারকে কাজে লাগান এবং ব্যবসাকে আরো সামনে এগিয়ে নিতে ও গতিশীল করতে প্রযুক্তির পিছনে বিনিয়োগ করুন। 

Spread the love

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.